History

বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, পূণ্যভূমি সিলেট এ বিজিবি সেক্টর সদর দপ্তর, আখালিয়ায় অবস্থিত এবং বিজিবি সিলেট’র প্রত্যক্ষ পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত একটি আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সবুজ শ্যামল ছায়াঘেরা, নিরাপদ ও মনোরম পরিবেশ, কোলাহল মুক্ত প্রশান্ত তপোবনের মত আমাদের এ প্রতিষ্ঠান। সুষ্ঠু জ্ঞানার্জন ও উন্নত শিক্ষা পদ্ধতি সর্বোপরি আদর্শ মানুষ গড়ার এক অনন্য বিদ্যাপীঠ। ১৯৯৩ সালে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ রাইফেল্স স্কুল, সিলেট নামে জুনিয়র স্কুল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় ।

১৯৯৬ সালে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্বীকৃতি লাভ করে এবং ১৯৯৭ সালে এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা প্রথমবারের মত এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। ২০১২ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও সিলেট শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদনক্রমে প্রতিষ্ঠানটি কলেজ’এ উন্নীত হয় এবং ২০১৪ সালে এ প্রতিষ্ঠানের ১ম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা প্রথম বারের মত এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

উন্নত শিক্ষাদান পদ্ধতি, সুশৃঙ্খল পরিবেশ ও নিয়মানুবর্তিতার জন্য এ প্রতিষ্ঠান এক স্বতন্ত্র মর্যাদায় অভিষিক্ত। শিক্ষা-দীক্ষা, শিল্প-সংস্কৃতি ও খেলাধুলা সকল ক্ষেত্রেই প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে গৌরবোজ্জ্বল সাফল্য। পিইসি, জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ১০০% । পাবলিক পরীক্ষা সমূহের ফলাফলে সিলেট শিক্ষা বোর্ডে কয়েকবার ‘সেরা’-২০’ প্রতিষ্ঠানে অন্তভূক্ত হওয়ার খ্যাতি অর্জন করেছে। শিক্ষা ও সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্রে সাপ্তাহিক ও বাৎসরিক কার্যক্রমের ভিত্তিতে এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা স্বীয় মেধা ও প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে চলেছে। বিভিন্ন শিক্ষামূলক প্রতিযোগিতা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা এবং ক্রীড়াঙ্গনের রয়েছে ঈর্ষণীয় সাফল্য। প্রতিষ্ঠানে চালু রয়েছে বিভিন্ন ক্লাব কার্যক্রম, যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা নিজেদেরকে মেলে ধরার সুযোগ পাচ্ছে। বিজিবি সিলেট’র সম্মানিত সেক্টর কমান্ডার পদাধিকার বলে এ প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি’র চেয়ারম্যান।

পড়ালেখা, ফলাফল, খেলাধুলা ও অন্যান্য সহ-পাঠ্যক্রমিক কার্যাবলি এবং বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অর্জিত ফলাফলের ভিত্তিতে বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, সিলেট বিভাগ তথা দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে স্থান করে নিয়েছে।

পরিশেষে, বর্তমান অর্জিত ফলাফলের ধারাবাহিকতা ও সুনাম অক্ষুণ্ন রেখে আরো ভাল ফলাফল অর্জন করতে আমরা বদ্ধপরিকর। প্রতিষ্ঠান পরিচালনা এবং শিক্ষার মান উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিক সহযোগিতা আমাদের একান্ত প্রত্যাশা।

সবাইকে – ধন্যবাদ।